বুধবার, ১৯ মে, ২০২১

ময়মনসিংহ গীতিকার সাহিত্যমূল্যে বিচার করো প্রশ্নোত্তর

ময়মনসিংহ গীতিকার সাহিত্যমূল্যে বিচার করো প্রশ্নোত্তর বাংলা অনার্স Bengali honours moymonsingh gitikar sahittomullo bichar koro


                প্রশ্নের মান - ৫/৬


প্রশ্ন : ময়মনসিংহ গীতিকার সাহিত্যমূল্যে বিচার করো ।


উত্তর:- ময়মনসিংহ গীতিকা বা পূর্ববঙ্গীয় গীতিকার সাহিত্যমূল্য কখনোই অস্বীকার করা যায় না । এই সব কাহিনী গুলির মধ্যে প্রেমের দুর্দমনীয় গীতি ও মিলনে তীব্র আকুতি সমস্ত বাধা বিপত্তি কে অতিক্রম করার অদম্য আকাঙ্ক্ষা উজ্জ্বল বর্ণে চিত্রিত হয়েছে । বিশেষ বিশেষ পালায় নায়িকারা যেমন মহুয়া , মলুয়া , চন্দ্রাবতী , কাজল রেখা আপন আপন স্বাতন্ত্র্য উজ্জ্বল । এই সব কাহিনী তে প্রতি টি নারী চরিত্র প্রাণহীন ও নির্জীব বলে মনে হয় না কারণ তারা রক্ত মাংসের চরিত্র হয়েও নিজস্ব আকাঙ্ক্ষা কে ব্যক্ত করেছেন । তবে কখনো কখনো ব্যর্থ প্রেম আমাদের মন কে করুন রসে ভরিয়ে দিয়েছে । প্রেমের এই উজ্জ্বল মহিমা আর অন্য কোনো সাহিত্য এভাবে প্রকাশ ঘটেনি । সবকিছুই মিলিয়ে বাংলা সাহিত্য আধুনিক কালে আঞ্চলিক সাহিত্যর জন্ম হলেও ময়মনসিংহ গীতিকার পালা গুলি অমিলন হয়েই থাকবে বাঙালী পাঠকের কাছে ।




[  ] ময়মনসিংহ গীতিকা ও পূর্ববঙ্গ গীতিকার অন্তর্গত পালাগুলি তে বিষয়ের দিক থেকে তিনটি প্রবণতার পরিচয় পাওয়া যায় - লৌকিক প্রণয়গাঁথা , ঐতিহাসিক রোমান্টিক আখ্যান এবং ঐতিহাসিক বিষয়বস্তু । পালা গুলিতে জাতিভেদ নেই , বর্নভেদ নেই , হিন্দু - মুসলমান সাম্প্রদায়িক ভেদ নেই - গ্রাম্য কবিরা উদার উন্মুক্ত চিত্তের মানবতার জয়গান করেছেন । কয়েকটি স্থানে কবিত্বের সমুন্নত প্রকাশ ঘটেছে । যেমন নদের চাঁদ ও মহুয়ার প্রেম বিষয়ক সংলাপ বাংলা সাহিত্য চিরন্তন মর্যাদা লাভ করেছে । ইতিহাস ও সমাজ জীবনের পরিচয় এই গাঁথা কাব্য গুলিতে ঐতিহাসিক মূল্য দিয়েছে ।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন