বৃহস্পতিবার, ১২ আগস্ট, ২০২১

এক মুঠো চাল যেখানে দুর্লভ সেখান থেকে সেটি নিতে হবে বৈকি কে কাকে বলেছে কোথায় এক মুঠো চালও দুর্লভ কথাটির তাৎপর্য কী প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক এক মুঠো চাল যেখানে দুর্লভ সেখান থেকে সেটি নিতে হবে বৈকি কে কাকে বলেছে কোথায় এক মুঠো চালও দুর্লভ কথাটির তাৎপর্য কী প্রশ্নোত্তর Bengali honours ak mutho chal jekhane durlov sekhan theke seti nite hobe boyki ke kake boleche kothay ak mutho chal durlov kothatir tatporjo ki questions answer


প্রশ্ন : " এক মুঠো চাল যেখানে দুর্লভ সেখান থেকে সেটি নিতে হবে বৈকি ।" কে কাকে বলেছে ? কোথায় এক মুঠো চালও দুর্লভ ? কথাটির তাৎপর্য কী ?




উত্তর:- " এক মুঠো চাল যেখানে দুর্লভ সেখানে ...." কথাটা সন্ন্যাসী ঠাকুর বলেছেন ঠাকুরদাদা কে । কঞ্জুস , সন্দেহ প্রবণ , হৃদয়হীন লক্ষেশ্বরের কাছে এক মুঠো চালও দুর্লভ । সে কখনো কোনো দরিদ্রকে , অসহায়কে বা ক্ষুধার্ত কে এক মুঠো চাল ভিক্ষা দিয়েও সাহায্য করেনি । আমরা বলে থাকি , কঞ্জুস ছাই দিলেও নিতে হয় তাতে তার দেওয়ার অভ্যাসটা তো গড়ে ওঠে । এই জন্যই সন্ন্যাসী লক্ষেশ্বরের গৃহে যেতে চান । তার হাতে দান গ্রহণ করে আজ তাঁর দেবার প্রবৃত্তি টাকেই জাগিয়ে তুলে তাকে মানুষ করে তুলতে চাওয়া । আমরা জেনেছি সন্ন্যাসী ঠাকুরই মহারাজ বিজয়াদিত্য । তিনি মহান ভালো প্রশাসক । সন্ন্যাসীর ছদ্মবেশে তিনি প্রজাদের খোঁজ খবর নিতে এসেছেন । কারা তাঁকে পছন্দ করে না কারা তাঁকে ভালোবাসে কাদের দ্বারা সমাজের কল্যাণ হয় । কাদের দ্বারা অকল্যাণ হয় সব তথ্য তিনি নিজে সংগ্রহ করেন । বুঝতে পারেন লক্ষেশ্বরের মতো অসামাজিক , হৃদয়হীন , কৃপণ এবং সন্দেহ বাতিকগ্রস্থ মানুষ আর নেই । এটা তাঁর এক অসুখ । সন্ন্যাসী ঠাকুর এই অসুখ নিরাময় করতে চান । লক্ষেশ্বরের সঙ্গে মিশে তাকে বোঝাতে চান ধন সঞ্চয় করে পাহাড় করলেও তাতে তৃপ্তি হয় না । মানুষের কল্যাণে ব্যয় করলে ধনেরও সার্থকতা মনেরও তৃপ্তি । সেই তৃপ্তির বীজ অঙ্কুরিত করতেই সন্ন্যাসী তথা সম্রাট বিজয়াদিত্য লক্ষেশ্বরের গৃহে গিয়ে এক মুঠো চালই নিতে চান ।



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন