মঙ্গলবার, ১৭ আগস্ট, ২০২১

শশীভূষনের সঙ্গে গিরিবালার পরিচয় কীভাবে হয় সম্পর্ক কীভাবে গড়ে ওঠে আলোচনা করো প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক শশীভূষনের সঙ্গে গিরিবালার পরিচয় কীভাবে হয় সম্পর্ক কীভাবে গড়ে ওঠে আলোচনা করো প্রশ্নোত্তর  bengali honours soshivushon songe giribalar porichoy kivabe hoi somporko kivabe gore uthe alochona koro


                       প্রশ্নের মান : ৫/৬




প্রশ্ন: শশীভূষনের সঙ্গে গিরিবালার পরিচয় কীভাবে হয় সম্পর্ক কীভাবে গড়ে ওঠে আলোচনা করো ।



উত্তর: " মেঘ ও রৌদ্র " গল্পের নায়ক শশীভূষণ এম . এ . বি . এল . ডিগ্রী ধারী , উচ্চশিক্ষিত । কিন্তু স্বল্প ভাষী , ক্ষীণদৃষ্টিশক্তি ও অন্তমুখী বলে ওকালতি ব্যাবসায় উৎসাহ ও আগ্রহ দেখায়নি । তাই তাঁর পিতা তাকে গ্রামের বিষয় সম্পত্তি দেখার ভার দিয়ে গ্রামে পাঠান । গ্রামে এসেও নানা কারণে মানুষের বন্ধুত্ব না পেয়ে ঘরে বসে শুধু পড়াশোনা নিয়েই থাকে । তার ঘরের পাশেই গিরিবালা দের বাড়ী । আট বছর বয়স থেকে গিরিবালা এই মানুষটাকে দেখেছে । কারো সঙ্গে তেমন কথা বলে না ঝগড়া করে না । অথচ তাকে দেখলে গিরিবালার ভয়ও করে না । কেবল বই পড়ে যে কি হয় গিরিবালা বোঝে না । শিশু মনের কৌতূহল বশত সে মানুষটার মনোযোগ আকৃষ্ট করবার চেষ্টা করে । কখনো ঘরের বাইরে থেকে জামের আটি ছুঁড়ে মারে , কখনো জাম খেয়ে দেয় , কথা বলে । নিঃসঙ্গ শশীভূষণ বালিকার সঙ্গে ভাব করে নিয়ে কিছুটা আনন্দে সময় কাটাতে পারে । এই ভাবে দৌরাত্ম , মান অভিমান , শেষদিকে পড়াশোনার মধ্যে দিয়ে গিরিবালা কে অক্ষর চেনানো , বানান শেখানো , ব্যাকরণ শেখানো , কাব্য শোনানো এসবের মধ্যে দিয়ে অসমবয়সী এই দুটি মানুষের অদ্ভুত একটা সম্পর্ক একটা টান তৈরী হয়ে যায় ।



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন