বুধবার, ২৫ আগস্ট, ২০২১

আমার বুকের হার যে তাহারই মধ্যে ছিল আমার ২৬ বৎসরের যৌবন যে তাহার চারিদিকে বিকশিত হইয়াছিল একবার দেখিতে ইচ্ছে করে না ব্যাখ্যা করো প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক আমার বুকের হার যে তাহারই মধ্যে ছিল আমার ২৬ বৎসরের যৌবন যে তাহার চারিদিকে বিকশিত হইয়াছিল একবার দেখিতে ইচ্ছে করে না ব্যাখ্যা করো প্রশ্নোত্তর Bengali honours amar buker har je Tahari modhye Chilo Amar 26 botsorer joubon je tahar charidike bikoshito hoiyachilam akbar dekhite iche kore na bakkha Koro


                       প্রশ্নের মান : ৫/৬



প্রশ্ন: "আমার বুকের হার যে তাহারই মধ্যে ছিল । আমার ২৬ বৎসরের যৌবন যে তাহার চারিদিকে বিকশিত হইয়াছিল একবার দেখিতে ইচ্ছে করে না ?" ব্যাখ্যা করো ।



উত্তর:- আলোচ্য অংশটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের " কঙ্কাল " গল্প থেকে গ্রহণ করা হয়েছে । এ খানে লেখক কল্পনায় মানুষের চিরন্তন আখাঙ্খাটি অনুমান করে আমাদের সামনে উপস্থাপন করেছেন এক অশরীরী জীবনকথা । 



[      ] " কঙ্কাল " গল্পে জীবিত অবস্থার এক সুন্দর নারীর ইতিকথা যেন রচনা করা হয়েছে । অতি প্রাকৃতের আবহাওয়া এক চমৎকার রহস্যের সৃষ্টি করেছেন রবীন্দ্রনাথ । এ খানে রবীন্দ্রনাথ এক নারী জীবনের ব্যার্থতার কথাও বলতে চেয়েছেন । নারীর রূপ লাবণ্য ভালোবাসা সমস্তই ব্যার্থ হয়ে যায় টাকার সঙ্গে তুলনায় । এই ধরনের এক ট্র্যাজেডির সুরে " কঙ্কাল " গল্পটি লিখিত ।


[      ] আজকের কঙ্কালের মধ্যে মানুষেরই তো বুকের হাড় অবস্থিত সেখানেই তো তার সুখ , দুঃখ , আশা , আকাঙ্ক্ষা , ভালোবাসা সবই সঞ্চিত ছিল । অশরীরী রূপে সে সব তো এ খন আর আস্বাদন করা যায় না । ওই কঙ্কাল কে কেন্দ্র করেই তার যৌবন তার ভূবন মোহিনী রূপ দেখে সে নিজেই মোহিত হয়েছিল মৃত্যুর পরেও সেই স্বরূপ দেখার আকাঙ্ক্ষা তো স্বাভাবিক । অশরীরীর এই আকাঙ্ক্ষার কথাই উদ্ধিতিটিতে বলা হয়েছে ।




কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন