রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বাবা উপনন্দ তোমার কল্যাণে তাঁর আর এক বীনা শুনে নিলুম এর সুর কোনোদিন ভুলব না বক্তা কে তাঁর বলতে কাকে বোঝানো হয়েছে কথাটির তাৎপর্য কী প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক বাবা উপনন্দ তোমার কল্যাণে তাঁর আর এক বীনা শুনে নিলুম এর সুর কোনোদিন ভুলব না বক্তা কে তাঁর বলতে কাকে বোঝানো হয়েছে কথাটির তাৎপর্য কী প্রশ্নোত্তর baba uponondo tomar kollane tar ar ak bina shune nilum ar sur konodin vulob na bokta ke tar bolte kake bojhano hoyeche kothatir tatporjo ki



প্রশ্ন : " বাবা উপনন্দ তোমার কল্যাণে তাঁর আর এক বীনা শুনে নিলুম এর সুর কোনোদিন ভুলব না  .."  বক্তা কে ? " তাঁর " বলতে কাকে বোঝানো হয়েছে ? কথাটির তাৎপর্য কী ?




উত্তর:- " বাবা উপনন্দ তোমার কল্যাণে তাঁর আর এক বির্ণা শুনে নিলুম .." কথাটির বক্তা হলেন সন্ন্যাসী বেশধারী মহারাজ বিজয়াদিত্য । তিনি " তাঁর " বলতে বিনাচার্য সুরসেনকে বুঝিয়েছেন । 




[       ] মহারাজ বিজয়াদিত্য সুরসেনের সুরের ভক্ত ছিলেন । তাঁর বীণার সুর শুনতে পারলে তিনি খুশি হতেন । কিন্তু সুরসেন মারা যাওয়ায় সে সম্ভবনা আর নেই । পরলোকগত সুরসেনের ঋণ শোধ করবার জন্য উপনন্দ নামের বালক খেলা ছেড়ে পুঁথি লিখে উপার্জন করছে শুনে তিনি মুগ্ধ হন । সুরসেনের সঙ্গে উপনন্দের সম্পর্ক জানতে চাইলে উপনন্দ বলেছে সে যখন অনাথ হয়ে এই নগরে আসে ঝড় বৃষ্টিতে মন্দিরে আশ্রয় নেয় তখন পুরোহিত নিচ জাত মনে করে তাকে তাড়িয়ে দেন । সেখানে দেবতাকে বীণা বাজিয়ে শোনাচ্ছিলেন বিনাচার্য সুরসেন । তিনি অসহায় অনাথ শিশু উপনন্দকে নিজের কাছে নিয়ে আসেন । দরিদ্র হলেও উপনন্দ কে তিনি আশ্রয় দেন তাকে নিজের পুত্রের মতো মনে করেন এবং শিক্ষা দানের ব্যাবস্থা করেন । উপার্জনের জন্য চিত্র বিচিত্র করে পুঁথি নকল করার কাজ শিখিয়েছেন । সেই শিক্ষার সহায়তায় আজ উপনন্দ উপার্জন করে পিতার তুল্য সুরসেনের ঋণ শোধ করছে ।



[      ] এই বৃত্তান্ত শুনে মুগ্ধ হয়েছেন মহারাজ । অনাথ শিশু কে বুকে জড়িয়ে নেওয়ার মানবতার এমন সুর তিনি আগে শোনেন নি । অজ্ঞাত কুলশিল বালককে যে শিক্ষা তিনি দিয়েছেন তারই প্রকাশ দেখেছেন উপনন্দের আচরণে । তাই মুগ্ধ মহারাজ উদ্ধৃত উক্তিটি করেছেন ।



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন