বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নীলদর্পণ নাটকে ক্ষেত্রমনি চরিত্রের গুরুত্ব বিচার করো প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক নীলদর্পণ নাটকে ক্ষেত্রমনি চরিত্রের গুরুত্ব বিচার করো প্রশ্নোত্তর Bengali honours nildorpon natoke kkhetromoni choritrer gurutto bichar koro questions answer


                    প্রশ্নের মান : ৫/৬ 



প্রশ্ন : " নীলদর্পণ " নাটকে ক্ষেত্রমনি চরিত্রের গুরুত্ব বিচার করো ।




উত্তর:- " নীলদর্পণ " নাটকে গুরুত্ব পূর্ন নারী চরিত্রটি হল ক্ষেত্রমনি । এই চরিত্রটির দ্বারা নাট্যকার তাঁর উদ্দেশ্য মূলক নাটকের কিছু উদ্দেশ্য সিদ্ধ করে নিয়েছেন । চাষী প্রজাদের উপর নীলকর সাহেবদের অত্যাচার কত ভাবে হত তা তুলে ধরবার জন্যই " নীলদর্পণ " নাটক । চাষীর ঘরের যুবতী বৌ ঝিদের প্রতি সাহেবদের লোভ ও আচরণের দৃষ্টান্ত হিসেবে ক্ষেত্রমনীর চরিত্র পরিকল্পনা । সাধুচরণের একমাত্র কন্যা ক্ষেত্রমনি সন্তান সম্ভবা হয়ে পিতৃগৃহে এসে রয়েছে । আমিন তাকে দেখা মাত্র রোগ সাহেব কে উপহার দেবার কথা ভেবেছে । পদীময়রানি ক্ষেত্রমনি কে সাহেবের হয়ে কু প্রস্তাব দিয়েছে । অসম্মত হওয়ায় সাহেবের লেঠেলরা জোড় করে ক্ষেত্রমনিকে রোগ সাহেবের কামরায় নিয়ে গিয়েছে ।





[       ] এই সাহেবের কামরায় ক্ষেত্রমনি যেভাবে নিজের সতীধর্ম রক্ষা করতে চেয়েছেন , যে সংলাপ উচ্চারণ করেছে , যে আচরণ করেছে তাতে নাট্যকারের উদ্দেশ সিদ্ধ তো হয়েছেই চরিত্রটি ও জীবন্ত , নাট্যগুনসম্পর্ন্ন , আকর্ষনীয় হয়ে উঠেছে । গ্রাম্য সংস্কার যুক্ত ক্ষেত্রমনি প্রথমে পদীকে সকাতরে অনুরোধ করেছে বাড়িতে রেখে আসার জন্য।  সাহেবকেও অনুরোধ করছে " বাবা " বলে । লম্পট সাহেব ক্ষেত্রমনির সেই আকুল অনুরোধ কে , সতীত্ব রক্ষার ব্যাকুলতা কে গ্রাহ্য না করে তার কাপড় ধরে টেনেছে । তখন মরিয়া হয়ে ক্ষেত্রমনি সাহেব কে গ্রাম্য ভাষায় গালাগালি দিয়েছে , হাতে নখ বিঁধিয়ে দিয়েছে । শুধু এই একটা দৃশ্যেই চরিত্রটি যথেষ্ট নাটকীয় জীবন্ত ও গুরুত্ব পূর্ন হয়ে উঠেছে ।



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন