রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১

পুঁইমাচা গল্পের অন্নপূর্ণার চরিত্রটি কতটা সার্থক হয়েছে আলোচনা করো প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক পুঁইমাচা গল্পের অন্নপূর্ণার চরিত্রটি কতটা সার্থক হয়েছে আলোচনা করো প্রশ্নোত্তর Bengali honours puimacha golper onnopurnar choritroti kotota sarthok hoyeche alochona koro

প্রশ্ন: " পুঁইমাচা " গল্পের অন্নপূর্ণার চরিত্রটি কতটা সার্থক হয়েছে আলোচনা করো ।


উত্তর:- " পুঁইমাচা " গল্পের প্রধান নারী চরিত্র টি অন্নপূর্ণা । ক্ষুদ্র পরিসরেই সে একটি পূর্ণাঙ্গ নারী চরিত্র রূপে ফুটে উঠেছে । তিন কন্যার জননী ,এই  অন্নপূর্ণা দরিদ্র ব্রাহ্মণ পরিবারের বধূ । গৃহকর্ত্রী  ব্যক্তিত্ব যেমন তার মধ্যে ফুটে উঠেছে , তেমনি ফুটে উঠেছে , তেমনি ফুটে উঠেছে স্নেহ বাৎসল্য, ন্যায় ধর্ম , কর্তব্যবোধ এবং কর্মতৎপরতা । অকর্মন্য স্বামীর উচ্ছবৃত্তি  এবং সব ব্যাপারে উদাসীনের জন্য সে বিরক্তি প্রকাশ করেছে ,  মেয়ের বিয়ের উদ্যোগ করতে তাগাদা দিয়েছে । পড়ের জমির ফেলে দেওয়া পুঁইশাক নিয়ে আসায় মেয়েকে বকেছে , পুঁইশাক ফেলা করিয়েছে ।  আবার গোপনে কুড়িয়ে এনে রান্না করে মেয়েকে স্নেহে খেতেও দিয়েছে । পরের জিনিস চুরি করে আনলে অন্নপূর্ণা রাগ করেছে । বলেছে " আমার জোটে খাব , না জোটে খাব না , তা বলে পরের জিনিসের হাত ?"



[      ] সাধ্যমত মেয়েদের স্নেহ যত্ন করে , ভালো খাবার তৈরি করে খাওয়াত অন্নপূর্ণা । ভোজন রসিক বড় মেয়েকে বেশি বেশি দিত । মনে মনে ভাবত " ক্ষেন্তী আমার যার ঘরে যাবে , তাদের অনেক সুখ দেবে ।" কিন্তু আশা পূরণ হয়নি । ক্ষেন্তির বিয়ে দিয়ে পরের ঘরে পাঠিয়েছে , আর সে ফিরে আসেনি বসন্তে বিনা চিকিৎসায় মারা গেছে । এখন খাবার তৈরি করে অন্য দুই মেয়েকে দিয়ে অন্নপূর্ণা বড়ো মেয়ের কথা ভেবে স্বভাবতই কাতর হয় । দরিদ্র পরিবারের স্নেহ বাৎসল্য জননী চরিত্র হিসেবে অন্নপূর্ণা খুবই সার্থক চরিত্র হয়েছে ।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন