শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১

কৃষ্ণ দাস কবিরাজের চৈতন্যে চরিতামৃত সম্পর্কে আলোচনা করো প্রশ্নোত্তর

কৃষ্ণ দাস কবিরাজের চৈতন্যে চরিতামৃত সম্পর্কে আলোচনা করো প্রশ্নোত্তর বাংলা অনার্স bengali honours questions answer krishna das kobirajer choitonno choritamrit somporke alochona koro


                 প্রশ্নের  মান ৫/৬



প্রশ্ন: কৃষ্ণ দাস কবিরাজের চৈতন্যে চরিতামৃত সম্পর্কে আলোচনা করো ।



উত্তর:- চৈতন্যেচরিতামৃতের রচয়িতা কৃষ্ণ দাস কবিরাজ । গ্রন্থ টি তিনটি লীলায় বিভক্ত । যথা আদীলীলা , মধ্যলীলা , অন্তলীলা । কৃষ্ণ দাস যখন এই গ্রন্থ টি লিখেছেন চৈতন্যেদেব তার ৪০ বছর আগে দেহ রেখেছেন । এমনকি এই গ্রন্থ টি লেখার সময় বৃন্দাবনের ৬ গোস্বামীদের একজনও বেচেঁছিলেন না । কৃষ্ণ দাস কবিরাজ নিজে বলেছেন এই গ্রন্থ লেখা হয়েছে বৃন্দাবন দাসের গ্রন্থের পরিপুক হিসেবে । আদি লীলায় ১৭ টি পরিচ্ছেদ আছে তার মধ্যে প্রথম ১২ টি পরিচ্ছেদ শুধু মুখবন্ধ ; যেখানে বন্দনা , মঙ্গলা চরণ , চৈতন্যে নিত্য নন্দ - অধ্যেত্বতত্ত্ব বর্ননা , ভক্ত ভাব স্বরূপ ভোক্তাবতার , ভক্ত - ভক্তশলি এই পঞ্চতত্ত্বের  নিরূপণ এগুলি মুখ বন্ধের বিষয় । আদি লীলার শেষ পাঁচ পরিচ্ছেদে চৈতন্যের বাল্য লীলা , পৌগন্ডলীলা , কৈশোর লীলা ও যৌবন লীলা খুব সংক্ষেপে বলা হয়েছে । মধ্য লিলাতে ২৫ টি পরিচ্ছেদ আছে যার প্রথম দুই পরিচ্ছেদে চৈতন্যের শেষ লীলার পূর্বাভাস দেওয়া আছে । এছাড়া সন্ন্যাস গ্রহণ , লীলাচলে প্রত্যাবর্তন , বৃন্দাবন গমন , কাশীতে ভক্তি প্রচার অর্থাৎ সন্ন্যাস গ্রহণের পর থেকে ৫ বছরের বিবরণ মধ্য লীলাতে আছে । অন্ত লীলায় ২০ টি পরিচ্ছেদ আছে যেখানে চৈতন্যদেবের মহাভাব বর্ণিত হয়েছে এবং মহাপ্রভু রচিত " শিক্ষাস্টক " কে ব্যাখ্যা করা হয়েছে । " চৈতন্যেচরীতামৃত " শুধুমাত্র জীবনী গ্রন্থ নয় তত্ত্ব গ্রন্থ ও বটে । চৈতন্যর জীবন কথার সঙ্গে চৈতন্য অবতাত্ত্ব কথা অঙ্গাঙ্গীভাবে বর্ণিত হয়েছে । এছাড়া বিবিধ সংস্কৃত গ্রন্থ থেকে এবং গৌড়ীয় বৈষ্ণব দর্শন মূলক গ্রন্থ থেকে উদ্ধতি দিয়ে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।  কৃষ্ণ দাস কবিরাজ বৃন্দাবন দাসের মত প্রধান ভক্তির আবেশ নিয়ে চৈতন্যচরিত লেখেননি ; ঐতিহাসিক তত্ত্ব , রশগতা , দার্শনিক তত্ত্ব  বিচার সব দিক দিয়ে "   চৈতন্যেচরীতামৃত " জীবনী গ্রন্থ হিসেবে আমাদের কাছে ধরা দিয়েছে ।




কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন