শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১

সাঁঝ সকালের মা গল্পের জটির জীবিকার পরিচয় দাও প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক bengali honours সাঁঝ সকালের মা গল্পের জটির জীবিকার পরিচয় দাও প্রশ্নোত্তর sanjh sokaler ma golper jotir jibikar porichoy dao questions answer

উত্তর:- মহাশ্বেতা দেবী “ সাঁঝ সকালের মা ” গল্পের প্রধান চরিত্র জটি ঠাকুরনী প্রথমে ছিল পাখমারা সম্প্রদায়ের মেয়ে । জাল দিয়ে সে পাখি ধরত । উৎসব কান্দরির সঙ্গে পালিয়ে গিয়ে তার জীবন কিছুদিন সুখেই কাটে । উৎসব নানান কাজে উপার্জন করত , জুটি কেবল দুটি রাঁধত আর উৎসব কে ভালোবাসত । শখ মেটাত । উৎসব অকালে মারা গেলে জটি সমস্যায় পড়ে । শিশু পুত্রকে নিয়ে সে এক সন্ন্যাসীর কাছ থেকে লাল চেলি ও ত্রিশূল নিয়ে দূরবর্তী এক স্থানে গিয়ে জটি ঠাকুরণী হয়ে আশ্রম গড়ে বসে । সেখানে দিনের বেলায় সে হয় ঠাকুরনী , আর সাঁঝ থেকে সকাল পর্যন্ত সে হয় সাধনের মা । উপার্জনের ধান্দা নিয়েই সে হয় ঠাকুরণী । ভক্তের পূজো নেয় , ঠাকুমার কাছে যেটুকু অভিজ্ঞতা লাভ করেছিল , তারই ভিত্তিতে মানুষকে ওষুধ দিত , আশীর্বাদ দিত , বিনিময়ে নিত এক পালি চাল । এই চাল টাই ছিল তার কাছে খুব দরকারী । অনেক পাপী তাপি জটির কাছে আসত পাপ মুক্তির আশায় । জটি সবাই কে সান্ত্বনা দিত আর তাদের সান্ত্বনা দেবার জন্যই আঁতুরে মরা ছেলে নখ , গসাপের কণ্ঠ হার , ধনেশ পাখির তেল সংগ্রহ করে রাখত । ঠাকুরনী যে চাল পেত রাত হলে সেই চাল সিদ্ধ করে পুত্র সাধনকে খাওয়াত । হাবা ছেলে সাধনের খিদেটা ছিল অনেক বেশী । তার খিদের অন্ন জোগাতেই জটি কে ঠাকুরণি হয়ে ভন্ডামীর আশ্রয় নিয়ে উপার্জনের চেষ্টা করতে হয়েছে ।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন