মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১

অনধিকার প্রবেশ অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর

 

বাংলা অনার্স সাম্মানিক অনধিকার প্রবেশ অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর Bengali honours onodhikar probesh oti songkhipto questions answer রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্পগুচ্ছ অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর robindronath Tagore golpo gucho questions answer


                   প্রশ্নের মান :- ১/২



১। " অনধিকার প্রবেশ " গল্পটি কোন পত্রিকার কোন সংখ্যায় প্রথম প্রকাশিত হয় ?


উত্তর:- " অনধিকার প্রবেশ " গল্পটি " সাধনা " পত্রিকার শ্রাবণ ১৩০১ সংখ্যায় প্রথম প্রকাশিত হয় ।


২। " অনধিকার প্রবেশ " গল্পের প্রধান চরিত্র টির নাম কি ? পরিচয় দাও ?


উত্তর:- " অনধিকার প্রবেশ " গল্পের প্রধান চরিত্র জয়কালী । সে পরলোকগত মাধবচন্দ্রর বিধবা স্ত্রী , রাধানাথ জিউর মন্দিরের অধিকারিণী ।


৩।  " এক বালক আর এক বালকের সহিত একটি অসম সাহসিক অনুষ্ঠান সমন্ধে বাজি রাখিয়াছিলাম ।" বাজিটি কী ?


উত্তর:- অসম সাহসিক বাজিটি হল ঠাকুর বাড়ীর মাধবী বিতান থেকে ফুল তুলে আনতে পারা ।


৪। জয়কালীর চেহারা কেমন ছিল ?


উত্তর:- জয়কালী দীর্ঘকার , দৃঢ পুরুষালী চেহারা , তীক্ষ্ণ নাসা , বেশ রুক্ষ এবং লালিত্যহীন ।


৫। মানুষের কোন কোন আচরণ জয়কালীর সহ্য হত না ?


উত্তর:- মানুষের পরচর্চা , পরণিন্দার প্রবণতা , ছোট কথা , নাকি কান্না , আলস্য এ গুলো জয়কালীর সহ্য হত না ।


৬। কোন ধরনের পুরুষরা জয়কালী কে ভয় করত ? কেন ?


উত্তর:- যে পুরুষরা চন্ডী মন্ডপে বসে অকাজে সময় নষ্ট করত তারা । কারণ এই ধরনের পুরুষদের জয়কালী খুবই ঘৃনা করত । 


৭। যেকোনো সামাজিক অনুষ্ঠানে বা সমাবেশে জয়কালী উপস্থিত থাকলে তাকেই সবাই প্রধান ভাবত কেন ?


উত্তর:- জয়কালীর ব্যাক্তিত্ব , সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষমতা এবং কড়া মনোভাবের জন্যই সবাই তাঁকে যেকোনো অনুষ্ঠানে প্রধান্য দিত ।


৮। জয়কালীর কয় সন্তান ? কাদের সঙ্গে সে থাকত ?


উত্তর:- জয়কালী নিঃসন্তান । তার মাতাপিতৃহীন দুই ভাতুষ্পুত্রের সঙ্গে সে থাকত ।


৯। রাধানাথ জিউর মন্দিরে কজন পূজারী ছিল ? তারা কাকে বেশী ভয় পেত ?


উত্তর:- রাধানাথের মন্দিরে দুজন ব্রহ্মান পূজারী ছিল । তারা দেবতার থেকেও জয়কালী কে ভয় পেত তার কড়া মেজাজের জন্য ।


১০। " ইহা তাহার স্বামী পুত্র তাহার সমস্ত সংসার ।" " ইহা " কী ? কার সংসার ?


উত্তর:- রাধানাথ জিউর মন্দির এবং মন্দিরের সমস্ত কিছু জয়কালীর সমস্ত সংসার ।


১১। মন্দিরের বাধবীবিতান থেকে ফুল তুলে আনা সহজ ছিল না । কেন ?


উত্তর:- মন্দিরের অধিকারিণী জয়কালীর কড়া নজরদারি ও শাসনের কারণেই ফুল তুলে আনা সহজ ছিল না ।


১২। সহোদরা ভগিনীর সঙ্গে জয়কালীর বিচ্ছেদ ঘটার উপক্রম হয় কেন ?


উত্তর:- সহোদরার স্বামী ছিল অনাচারী । কুক্কুটের মাংস ভক্ষণকারি । তাই জয়কালী মন্দিরের পবিত্রতা রক্ষার উদ্দেশ্য ভগিনীপতি কে মন্দিরে প্রবেশ করতে দেখেনি । এজন্যেই সহোদরার সঙ্গে বিচ্ছেদের উপক্রম হয় ।


১৩। নলিনের চরিত্রের প্রধান বৈশিষ্ট্য কী ?


উত্তর:- নলিনের চরিত্রের প্রধান বৈশিষ্ট্য যেখানে বিপদ , সেখানেই তার আকর্ষণ । যেদিকে বাঁধা , সেদিকেই তার গমনেচ্ছা ।


১৪। " আশ্রিত লতা ও বালক একত্রে ভূমিস্যৎ হইল ।" লতা ও বালকটির পরিচয় দাও ?


উত্তর:- " লতা " বলতে মন্দির আশ্রয় করে ওঠা মাধবীলতা গাছটিকে বলা হয়েছে।  আর বালকটি হল মন্দিরের বড় অধিকারিণী জয়কালীর ভ্রাতুস্পুত্র , মিলন , যে মাধবী বিতান থেকে ফুল আনতে পারবো বলে বাজি ধরেছিল ।


১৫। মন্দিরের ফুল চুরি করার দুঃখ সাহস দেখাতে গিয়ে লনিনের কী শাস্তি হয় ?


উত্তর:- মন্দিরের ফুল তুলে আনতে গিয়ে ধরা পড়ে নলিন শাস্তি স্বরূপ চপেটাঘাত তো পেলই তার বৈকালিক আহারও বন্ধ হল ।


১৬। মন্দিরের মাধবী লতার মধ্যে শুকর ছানা দর্শন " বিভৎস ব্যাপার " কেন ?


উত্তর:- হিন্দু মন্দিরে শূকর কে অপবিত্র ভাবা হয় । তাই মন্দিরে শুকরের প্রবেশ নিষিদ্ধ । তবু সেই মন্দিরেই শুকর ছানার দর্শন অবশ্যইতো বিভৎস ব্যাপার ।


১৭। মন্দিরে ঢুকে পড়া শুকর ছানাটির কী পরিণতি হয় ?


উত্তর:- শুকর ছানাটির মালিকরা তাকে নিতে এলেও মৃত্যু ভয়ে ভীত ছানাটিকে বাঁচাবার জন্য জয়কালী ডোমদের ফিরে যেতে বলেছে । ছানাটা কে বের করে দেয়নি ।


১৮। কোন বিতর্কের উল্লেখ করে অনধিকার প্রবেশ গল্পটির সূচক ?


উত্তর:- ঠাকুরবাড়ীর মাধবীলতা থেকে ফুল ছিঁড়ে আনা সম্ভব কিনা এই বিতর্কের কথা উল্লেখ করে গল্পের সূচনা ।



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন